ঢাকা, ১৪ অক্টোবর, ২০১৯ ০২:০৬:৪৩ || ২৮ আশ্বিন ১৪২৬
Advertisement
৬৮০

৬ বছরে বিদেশি পর্যটক বেড়ে দ্বিগুন

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৩   আপডেট: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৩


ঢাকা: বিশ্ব পর্যটন দিবস শুক্রবার। এ দিবসকে সামনে রেখে পর্যটনের হালহকিত জানতে গিয়ে দেখা গেল, দেশে গেল ছয় বছরে বিদেশি পর্যটক সংখ্যা বেড়ে দ্বিগুন হয়েছে। মূলত বৈদেশিক বাণিজ্য বৃদ্ধি, রাজনৈতিক স্থিতিশীলতাসহ বিভিন্ন কারণে বিগত বছরগুলোতে পর্যটক বেড়েছে।
এ বছর দিবসের মূল প্রতিপাদ্য ‘সার্বজনীন ভবিষ্যত সুরক্ষায় পর্যটন ও পানি’। এ উপলক্ষে ১৬ দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে জাতীয় পর্যটন সংস্থা বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড (বিটিবি)। ঢাকা ছাড়াও চট্টগ্রাম, সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে নানা কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে। র‌্যালি, ওয়ার্কশপ, নৌকাবাইচ, সেমিনার, বিতর্ক প্রতিযোগিতা, আলোকচিত্র প্রদর্শনী, টক, খাদ্য উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে।
এক হিসাব থেকে দেখা গিয়েছে, ২০০৭ সালে দেশে আগত বিদেশি পর্যটক সংখ্যা ছিল দুই লাখ ৮৯ হাজার ১১০ জন। আর ২০১২ সালের সর্বশেষ হিসেব অনুযায়ী এই সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫ লাখ ৮৮ হাজার ১৯৩ জনে।
বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের এক পরিসংখ্যান থেকে দেখা দেখা যায়, ২০০৩ সালে আগত পর্যটক ছিল দুই লাখ ৪৪ হাজার ৫০৯ জন। পরের বছর তা বেড়ে দাঁড়ায় দুই লাখ ৭১ হাজার ২৭০ জনে। ২০০৫ সালে পর্যটনে ভয়াবহ ভাটা দেখা দেয়। আগের বছরের তুলনায় পর্যটক সংখ্যা না বেড়ে উল্টো কমে ৬৩ হাজার ৬০৮ জন। বিগত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের শেষ সময়ে এসে রাজনৈতিক অস্থিরতা বেড়ে যায়। যার ফলশ্রুতিতে ২০০৬ সালে এই সংখ্যা আরো কমে যায়।
সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে ২০০৭ সালে দেশে স্থিতিশীলতা থাকায় পর্যটক এক ধাক্কায় বেড়ে যায় ৯০ হাজার। পরের বছর পর্যটক বাড়ে এক লাখ ৭৮ হাজার ২২২ জন। ২০০৯ সালে ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার। এই সময় টানা তিন বছরের পর্যটক বেড়ে ২০১১ সালে তা ৫ লাখ ৯৩ হাজার ৬৬৭ জনে পৌছে। ২০১২ সালে আবারো রাজনৈতিক অস্থিরতায় পড়ে এই সংখ্যা ৫ হাজার কমে যায়।
বর্তমান সরকারের আমলে বিগত তত্ত্বাবধায়কের তুলনায় বেড়ে যায় মোট পর্যটক সংখ্যা বেড়েছে এক লাখ ২০ হাজার ৮৬১ জন।     
বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী গেল বছরে পর্যটন খাত থেকে আয় হয়েছে ১০০ মিলিয়নের ওপরে। ২০০৭ সালে পর্যটন থেকে আয়ের পরিমান ছিল ৬৫ দশমিক ৮১ মিলিয়ন। পরের বছর তা ৮৯ দশমিক ২৩ মিলিয়নে উন্নীত হয়। এ পরের তিন বছর আয় বাড়েনি। তবে সর্বশেষ ২০১২ সালে তা ১০০ মিলিয়ন ছাড়িয়ে ভিন্ন মাত্রায় উন্নীত হয়।       
লন্ডনভিত্তিক ওয়ার্ল্ড ট্রাভেল এন্ড ট্যুরিজম কাউন্সিলের তথ্য অনুযায়ী,  ২০১২ সালে বার্ষিক প্রবৃদ্ধিতে ২০১২ সালে পর্যটনের অবদান ছিল ২.১ শতাংশ। একই বছরের বার্ষিক প্রবৃদ্ধিতে পর্যটনের মোট অবদান ছিল ৪.৩ শতাংশ।     
এ প্রসঙ্গে ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আকতারুজ জামান খান কবির বলেন, পর্যটন খাতে উন্নয়নে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে জাতীয় পর্যটন সংস্থা বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড। উত্তরোত্তর সফলতা আনয়নে কাজ করে যাওয়াই আমাদের চুড়ান্ত লক্ষ্য।
বাংলাদেশ সময়: ১৮১৮ ঘন্টা, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০১৩
আইএইচ/